রাজ্য ও কেন্দ্রের ক্ষেত্রে টিকার দামের বৈষম্য কেন? কেন্দ্রকে প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টের

Mysepik Webdesk: আগামী ১ মে থেকে দেশজুড়ে খোলাবাজারে মিলবে করোনার টিকা। ১৮ বছরের বা তার ঊর্ধ্বে প্রত্যেকে পাবেন সেই টিকা। কিন্তু এক্ষেত্রে কেন্দ্রের তুলনায় রাজ্যকে বেশি দামে কিনতে হবে টিকা। এবার দামের এই বৈষম্য নিয়ে কেন্দ্রকে প্রশ্ন করলো সুপ্রিম কোর্ট। একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলায় বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এমনটাই প্রশ্ন তুলেছে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে।

আরও পড়ুন: দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হলে কোনও ‘ব্যবস্থা’ নয়

এদিক আদালতের পক্ষ থেকে সরকারি পক্ষের কৌসুলিকে প্রশ্ন করা হয় যেখানে কেন্দ্রের কাছ থেকে টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা প্রতি ডোজ ১৫০ টাকা করে নিচ্ছে, সেখানে কেন রাজ্যের কাছে সেই একই টিকার দাম নেওয়া হচ্ছে ডোজপিছু ৪০০ টাকা করে। কেন এই দু’ক্ষেত্রে টিকার দামের বৈষম্য থাকবে? কেন্দ্র কেন নিজেই একশো শতাংশ ভ্যাকসিন কিনে রাজ্যগুলিকে সরবরাহ করছে না।

আরও পড়ুন: প্রয়াত বিশিষ্ট সাংবাদিক রোহিত সরদনা

রাজ্যগুলি মূলতঃ দু’টি সংস্থার কাছ থেকে টিকা পেতে চলেছে। ভারত বায়োটেক ও সেরাম ইন্সটিটিউট। প্রথম দিকে রাজ্যগুলির জন্য ভারত বায়োটেকের পক্ষ থেকে কোভ্যাকসিন টিকার দাম ধার্য করা হয়েছিল প্রতিডোজ ৬০০ টাকা এবং সেরাম ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে কোভিশিল্ড টিকার দাম ধার্য করা হয়েছিল ৪০০ টাকা। পড়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অনুরোধে কোভিশিল্ডের দাম কমিয়ে ৩০০ টাকা করা হয়েছে। কোভ্যাকসিনের দাম করা হয় ৪০০ টাকা। তবে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে কোভিশিল্ড কিনতে হবে ৬০০ টাকায় আর কোভ্যাকসিন কিনতে হবে ১২০০ টাকায়।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *