Latest News

Popular Posts

পিছিয়ে যাবে চার পুর নিগমের ভোট? আসরে বঙ্গ বিজেপি

পিছিয়ে যাবে চার পুর নিগমের ভোট? আসরে বঙ্গ বিজেপি

Mysepik Webdesk: আগামী ২২ জানুয়ারি রাজ্যের চার পুরনিগমে ভোট। তবে তার আগেই ফের ঊর্ধ্বমুখী কোভিড গ্রাফ। পশ্চিমবঙ্গের চার পুর নিগমের ভোট পিছনোর আর্জিতে জনস্বার্থ মামলা হয়েছে কলকাতা হাই কোর্টে। শুক্রবার সেই মামলার শুনানি আছে হাইকোর্টে। এরই মধ্যে পুরভোট অন্তত এক মাস পিছিয়ে দেওয়ার দাবি তুলল বঙ্গ বিজেপি। আগামী সোমবার হলফনামা জমার নির্দেশ। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী মঙ্গলবার।

আরও পড়ুন: কলকাতার বিসি রায় শিশু হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত একসঙ্গে ২৯ চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মী

প্রায় প্রতিদিনই যেন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে লাগাম দিতে রাজ্যে জারি কড়া বিধিনিষেধ। সামান্য বেলাগাম হলেই পরিস্থিতি আরও বেগতিক হতে পারে বলেই আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের। বিধাননগর, চন্দননগর, আসানসোল ও শিলিগুড়ি পুরনিগমের ভোট কি আদৌ হবে, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। গত সোমবার রাজ্যের মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে বৈঠকের পর রাজ্য নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দেয়, রাজ্যে সংক্রমিতের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও আপাতত ভোট পিছনোর প্রয়োজনীয়তা নেই। নির্দিষ্ট দিনেই হবে চার পুরনিগমের নির্বাচন।

আরও পড়ুন: চাইলে গঙ্গাসাগর মেলা বন্ধ করতে পারে রাজ্য সরকার, রিপোর্ট হাইকোর্টের

শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, ”এই মুহূর্তে গোটা রাজ্যের যা পরিস্থিতি, তাতে ভোট করা সম্ভব নয়। এই নির্বাচন অন্তত এক মাস পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।” শমীকের সংযোজন, ”ভোট না পিছোলে সংক্রমণ রোখা সম্ভব নয়। একইসঙ্গে নিয়ন্ত্রণ করা হোক গঙ্গাসাগর মেলা। করোনা আবহে সাগর মেলা হলেও বাড়বে সংক্রমণ। ধর্মীয় ভাবাবেগ না দেখে নিয়ন্ত্রণ করা হোক সাগর মেলা।”
শুনানিতেই শুক্রবার কলকাতা হাই কোর্টের তরফে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের অবস্থান জানতে চায়। আগামী সোমবার হলফনামা জমার নির্দেশ। ঠিক তার পরদিন অর্থাৎ আগামী মঙ্গলবার মামলার পরবর্তী শুনানি। ভোট পিছবে নাকি একই দিনে হবে, সে ভাগ্য নির্ধারণ হতে পারে সেদিন।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *