বক্সিং ডে টেস্ট জয় দুই বিশ্বকাপ জয়ের সমতুল্য: ফারুক ইঞ্জিনিয়ার

Farokh Engineer

Mysepik Webdesk: বছরের শেষে ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়ারয় বক্সিং ডে টেস্ট জিতে নিয়েছে। অজিভূমে চার টেস্টের সিরিজটি এখন ১-১ অবস্থায়। প্রথম টেস্টে ভারত দুঃস্বপ্নের ৩৬ রানে অলআউট হয়ে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছিল। এরপর বিরাট কোহলি পিতৃত্বকালীন ছুটিতে দেশে ফিরে আসেন। বর্ডার-গাভাসকর সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অজিঙ্কা রাহানে দলের ব্যাটন অনবদ্যভাবে সামলান। দারুণ অধিনায়কত্ব করেন। সেঞ্চুরিও (১১২) হাঁকান তিনি। দলকে জয়ের পথে নিয়ে যান। যার প্রশংসা করছেন সবাই। এই জয়কে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার ফারুক ইঞ্জিনিয়ার ১৯৮৩ এবং ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের জয়ের সমতুল্য হিসাবে বর্ণনা করেছেন।

আরও পড়ুন: বিষাক্ত কুড়ির শেষ ছোবল, প্রয়াণ ভারতীয় হকি দলের আদিবাসী মুখ মাইকেল কিন্ডোর

প্রাক্তন উইকেটরক্ষক ফারুক ইঞ্জিনিয়ার এক সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘‘প্রথম ম্যাচে হেরে সিরিজ ফিরে আসার দুর্দান্ত ছিল। এই জয় বিশ্বকাপ এবং ১৯৭১ সালের ওভাল টেস্টের জয়ের মতো।” প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতীয় দল তাদের টেস্ট ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠতম স্কোরে অলআউট হয়ে যায়। যা নিয়ে ফারুক বলেছিলেন, ‘‘সেই ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ান বোলাররা লাইন লেন্থে বল করেছিলেন। আমাদের ব্যাটসম্যানরাও ভুল করতে থাকে। অজি বোলারদের কৌশলও খেটে যায় এবং ফলাফল সবার সামনে।”

রাহানের প্রশংসায় ইঞ্জিনিয়ার বলেন, ‘‘আমাদের ছেলেরা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে দুর্দান্তভাবে কামব্যাক করেছে। এরজন্য অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে এবং পুরো দলকে হ্যাটসআপ।”

আরও পড়ুন: সিডনি টেস্টের প্রস্তুতি শুরু করলেন রোহিত, টুইট বিসিসিআইয়ের

কপিল দেবের নেতৃত্বে ১৯৮৩ সালে টিম ইন্ডিয়া প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছিল। ইংল্যান্ডের লর্ডসে ফাইনালে ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছিল। এরপর মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে ২০১১ সালে দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জিতেছিল। মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়েতে অনুষ্ঠিত হওয়া ফাইনালে ইন্ডিয়ার কাছে পরাজিত হয়েছিল শ্রীলঙ্কা। উল্লেখ্য, প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার ফারুক ১৯৬১ থেকে ১৯৭৫ সালের মধ্যে ৪৬টি টেস্ট এবং ৫টি ওয়ানডে খেলেছিলেন।

সিরিজের প্রথম টেস্টের পরে কোহলি পিতৃত্বকালীন ছুটিতে দেশে ফিরে এসেছেন। যা নিয়ে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচুর সমালোচনার মুখোমুখি হন বিরাট। এই সম্পর্কে ফারুক বলেছেন, ‘‘এটা কোহলির ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। ও তাদের প্রথম সন্তানের জন্মের সময় স্ত্রীর সঙ্গে থাকতে চান। এতে কোনও ভুল নেই। আমি মনে করি যে, এই বিষয় গুলিকে নিয়ে ট্রোল করাও ভুল।”

ফারুক বলেন, ‘‘আমি চার সন্তানের জনক। ভারতীয় দলের হয়ে খেলতে গিয়ে সন্তানের জন্মের সময় আমি আমার স্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলাম না। এমনটা তখন হত না। এর অর্থ এই নয় যে, এমন হওয়া উচিত নয়। আমি যদি সুযোগ পেতাম, তবে আমি দলের হয়ে খেলতে পছন্দ করতাম, কারণ দল প্রথম টেস্টে হেরে গিয়েছিল। তবে এই মর্ডান ট্রেন্ডে কোহলিকে দোষ দেওয়া ভুল হবে।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *