Latest News

Popular Posts

শীতের স্বাস্থ্যকথা

শীতের স্বাস্থ্যকথা

Mysepik Webdesk: শীতকালে শিশুকে কীভাবে সুস্থ রাখা সম্ভব, কী করলে রোগব্যাধির আক্রমণ কম হবে তা সবারই জানা দরকার। পৌষ ও মাঘ এ দুই মাস হল শীতকাল অর্থাৎ ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। কিন্তু নভেম্বর থেকেই হালকা শীতের আমেজ অনুভব করা যায়। ঋতু পরিবর্তনের সময় রোগব্যাধির প্রকোপ স্বভাবতই বাড়ে। শীতকালেশীত আসছে। এ সময় শিশুকে কীভাবে সুস্থ রাখা সম্ভব, কী করলে রোগব্যাধির আক্রমণ কম হবে তা সবারই জানা দরকার। পৌষ ও মাঘ এ দুই মাস হল শীতকাল অর্থাৎ ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। কিন্তু নভেম্বর থেকেই হালকা শীতের আমেজ অনুভব করা যায়। ঋতু পরিবর্তনের সময় রোগব্যাধির প্রকোপ স্বভাবতই বাড়ে।

আরও পড়ুন: স্বাদ-গন্ধ চলে যাওয়া এখন অতীত! এক নজরে দেখে নিন ওমিক্রন সংক্রমণের উপসর্গগুলি

শীত থেকে বাঁচতে হলে সামর্থ্য অনুযায়ী যথাসম্ভব গরম কাপড় পরতে হবে। বিশেষ করে বাচ্চাদের গরম কাপড় দিয়ে মাথা ঢাকতে বা টুপি পরাতে হবে। কানে শীত বেশি লাগে, তাই কান ঢেকে রাখতে হবে। ধুলাবালি থেকে যতদূর সম্ভব নিজেকে দূরে রাখার চেষ্টা করতে হবে। যাদের সুযোগ আছে তারা উষ্ণ গরম জল দিয়ে স্রান করবেন। অথবা দুপুরের দিকে স্রান করতে হবে। ঘুমোনোর সময় লেপ বা কম্বল দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে, যাতে ঠান্ডা না লাগে। আবার অতিরিক্ত গরম কাপড়ের জন্য যাতে ঘেমে না যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে, শিশুরা যাতে ধুলাবালিতে খেলতে না যায়, আইসক্রিমসহ অন্যান্য ঠান্ডা পানীয় বা খাবার যেন না খায়।

আরও পড়ুন: শীতকালে জল কম খেলে যেসব সমস্যা হতে পারে

ফ্রিজের ঠান্ডা খাবার না খেয়ে, তাজা রান্না করা গরম খাবার খাওয়াই ভালো। ধূলিকণা থেকে বাঁচতে হলে মাস্ক পরতে হবে, যতটা সম্ভব কম জনসমাগম ও ভিড়ের জায়গা যেমন শপিংমল, হাটবাজার বা বিয়েবাড়িতে শিশুদের না নিয়ে যাওয়ায় ভালো। রাস্তা-ঘাটে জল ছড়াতে হবে যাতে ধুলাবালি ও জীবাণু অনেক কমে যাবে।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *