সোমবার রাতের মধ্যেই শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে যশ

Mysepik Webdesk: বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ ‘যশ’ আজই ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে চলেছে। সোমবার রাতের দিকে সেটি আরও শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে চলেছে। বুধবার দুপুরে সেটি দিঘা থেকে বালাসোরের মাঝে স্থলভূমিতে আছড়ে পড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। জানা গিয়েছে, ওই সময় ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ থাকবে ঘন্টায় ১৮০ থেকে ১৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত। ঘূর্ণিঝড়ের বিস্তৃতি অনেকটাই বেশি বলে এর ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও অনেক বেশি হবে বলে আশঙ্কা করছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

আরও পড়ুন: ঘূর্ণিঝড় টাউকটে নিখোঁজ নদিয়ার শ্রীবাস

আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়টির যা গতিপ্রকৃতি, তাতে সেটির অভিমুখ বর্তমানে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমে। এর ফলে কোনও প্রাকৃতিক কারণে অভিমুখ পরিবর্তন না হলে বাংলা -ওড়িশা উপকূল এলাকাতেই আছড়ে পড়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে সুন্দরবনের সাগরদ্বীপ দিয়েও স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে এই ঘূর্ণিঝড়। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল হবে। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সোমবার বিকেল থেকেই থেকে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের তিন জেলায় ঝোড়ো হাওয়া ও বৃষ্টি শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদের গ্রাম থেকে কলকাতার পিজি-তে পৌঁছনো ডাক্তার শ্রীকান্ত চ্যাটার্জীর কাহিনি

যশ -এর প্রভাবে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই হালকা ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। ঘন্টায় ১২০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে উত্তর ২৪ পরগনার উপকূল এলাকা এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে। কলকাতা, হাওড়া, হুগলিতে ঘন্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া এবং পুরুলিয়ায় মঙ্গলবার ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, পুরুলিয়া, বীরভূম, নদিয়াতেও ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *