ইউহানের আসল করোনা-চিত্র ফাঁস, চিনা সাংবাদিকের ৫ বছরের জেল

Mysepik Webdesk: তাঁর অপরাধ, তিনি সরকারের বিরুদ্ধে গিয়ে করোনা-কবলিত চিনের ইউহান শহরের আসল চিত্রটা জনসমক্ষে তুলে ধরেছিলেন। আর তার ফলেই তিনি চিন সরকারের রোষের শিকার হন। অগত্যা বিচারের পর তাঁকে ৫ বছরের সাজা শোনানো হয়েছে। আর এই ঘটনার ফলে গোটা বিশ্বে আরও একবার প্রমাণিত হয়ে গেল, চিনের মানুষের সরকারের বিরুদ্ধে গিয়ে কোনও কথা বলার অধিকার নেই। শুধু তাই নয়, নিজস্ব মতামত প্রকাশ করারও স্বাধীনতা নেই মানুষের।

আরও পড়ুন: আবার নক্ষত্রপতন! চলে গেলেন বাংলার কবি অলোকরঞ্জন দাশগুপ্ত

Chinese citizen journalist arrested after reporting on coronavirus from  Wuhan | South China Morning Post

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে এই তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে। জানা গিয়েছে, ইউহানের বাসিন্দা ধৃত সাংবাদিক ঝাং ঝান আগে পেশায় আইনজীবী ছিলেন। পরে তিনি ওকালতি ছেড়ে সাংবাদিকতার কাজ শুরু করেন। কয়েকমাস আগেই তাঁকে চিনা প্রশাসন আটক করেছিল। ইতিমধ্যেই প্রায় ৬ মাস হয়ে গিয়েছে তিনি সাংহাইয়ের একটি জেলে বন্দি রয়েছেন। চিনা প্রশাসনের অভিযোগ, ঝাং উইচ্যাট, ফেসবুক, ট্যুইটার ও ইউটিউবকে কাজে লাগিয়ে একাধিক সংবাদমাধ্যম-সহ বিভিন্ন জনের কাছে তথ্য সরবরাহ করেছেন। ইউহানকে কোভিড-এর হটস্পট হিসেবে তুলে ধরে তিনি ফ্রি রেডিয়ো এশিয়া ও ইপোক টাইমসকে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: ৮০ কোটি ডলার দান করলেন আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা

Citizen journalist facing jail in China for Wuhan Covid reporting | China |  The Guardian

চিনের মানবাধিকার সংগঠন চাইনিজ হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার্স জানিয়েছে, এই ধরনের ঘটনায় শুধু ঝাং ঝান এক নন, গ্রেফতার হয়েছে আরও কয়েকজন সাংবাদিক। শুধুমাত্রও ইউহানের কোভিড পরিস্থিতি নয়, ধৃতদের এবং তাঁদের পরিবারের উপর সরকারের তরফ থেকে যে চরম হেনস্থার ঘটনা ঘটেছে, তা নিয়েও খবর করেছিলেন ঝাং ঝান। আর স্বাভাবিকভাবেই সরকার-বিরোধী খবর করার জন্য তাঁর মাথার ওপর চিন প্রশাসনের খাঁড়া নেমে আসে। প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চিনের ইউহানে প্রথম করোনা ধরা পড়ে। ক্রমশ তা ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বে। চিনের উহান থেকেই করোনার সূত্রপাত বলে মনে করা হলেও চিন আজও তা স্বীকার করেনি।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *