টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন হওয়ার জন্য অপেক্ষা করেছিলেন যুবরাজ

Mysepik Webdesk: ভারতকে ২০০৭ সালে টি-২০ বিশ্বকাপ এবং ২০১১ সালে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ জেতার পিছনে যুবরাজ সিংয়ের ক্যারিশমাটিক পারফরম্যান্স গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিল। ৬ বলে ছ’টি ছক্কা হাঁকানোর কথা কিংবা ’১১-র বিশ্বকাপে অলরাউন্ড পারফরম্যান্স করে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হওয়ার কথা কেউই ভুলবেন না। তবে এদিন তিনি জানালেন যে, একসময় তিনিও ভেবেছিলেন ক্যাপ্টেসি পাবেন।

আরও পড়ুন: মাত্র বিয়াল্লিশেই অনন্তলোক যাত্রা করলেন বক্সার ডিঙ্কো সিং

আসলে তিনি ভেবেছিলেন যে, ২০০৭ সালে তিনিই অধিনায়কত্ব পেতে চলেছেন। এই কারণে অপেক্ষাতেও ছিলেন যুবি। কিন্তু নির্বাচকরা যুবরাজের পরিবর্তে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে অধিনায়ক হিসাবে বেছে নিয়েছিলেন। ধোনি তখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মাত্র তিন বছর পূর্ণ করেছিলেন। অন্যদিকে, দক্ষিণ আফ্রিকায় আয়োজিত প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলতে যাওয়ার আগে সেই বছরই টিম ইন্ডিয়া ৫০ ওভারের বিশ্বকাপে হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পরে প্রথম রাউন্ড থেকেই ছিটকে গিয়েছিল।

আরও পড়ুন: বিতর্কের জেরে চিনা কোম্পানিকে সরিয়ে দিল IOA, ব্র্যান্ডহীন কিট পরে অলিম্পিকে নামবেন খেলোয়াড়রা

ধোনি নির্বাচকদের তাঁর প্রতি বিশ্বাসের ওপর মর্যাদা রেখেছিল। তাঁর অধিনায়কত্বেই প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। যুবরাজ প্রসঙ্গত জানিয়েছেন যে, তিনি অধিনায়কত্ব না পেলেও একজন ‘টিম ম্যান’ হওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। যুবি বলেন, “সেই বছর ভারত ৫০ এবারের বিশ্বকাপ থেকে প্রথম রাউন্ডেই ছিটকে গিয়েছিল। ভারতীয় ক্রিকেট নিয়েও চলছিল ডামাডোল। এই পরিবেশের মধ্যে দুই মাসের ইংল্যান্ড সফরও ছিল। তাছাড়াও এক মাসের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা এবং আয়ারল্যান্ড যেতে হয়েছিল। এই সফরের পরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করা হয়েছিল। আমাদের প্রায় চার মাস পরিবার ছেড়ে দূরে থাকতে হয়েছিল।”

আরও পড়ুন: কোচ ও ক্যাপ্টেন হিসাবে দ্রাবিড়-ধাওয়ানের নাম মোটামুটি পাকা, ঘোষণা শীঘ্রই

তিনি আরও বলেন, “সম্ভবত সিনিয়ররা ভেবেছিলেন তাঁদের বিরতি দরকার। কেউই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে গুরুত্ব দিয়ে দেখেননি। আমি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের অধিনায়ক হওয়ার অপেক্ষায় ছিলাম। এরপর এম এস ধোনিকে অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়েছিল। হ্যাঁ, যিনিই অধিনায়ক হোন না কেন, আপনাকে সমর্থন করতেই হবে তাঁকে। শেষপর্যন্ত আপনি একজন টিম ম্যান। আমিও এরকম ছিলাম।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *